রাজশাহীতে প্রকাশ্যে ধূমপান করে পথচারীদের তোপের মুখে পড়েছেন এক তরুণী। এ ঘ’টনার একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওটি নিয়ে নানাবিধ আলোচনা-সমালোচনা করছেন অনেকেই। ধূমপান করতে দেখে ওই তরুণীর দিকে প্রথমে তেড়ে যাওয়া মাঝবয়সী ব্যক্তিটির নাম শহীদ হোসেন বারেক।

তিনি রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের সাবেক নেতা। শহিদ হোসেন বারেক নামের ঐ ব্যক্তি গণমাধ্যমকে তার পক্ষ থেকে একটি ব্যাখাও দিয়েছেন।

রোববার (৬ ডিসেম্বর) ঘ’টনার বি’ষয়ে জানতে চাইলে শহিদ হোসেন বারেক একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘একজন মে’য়ে মানুষ প্রকাশ্যে সিগারেট খাচ্ছিলো।

এটা খা’রাপ দেখা যাচ্ছিলো। পরিবেশ ন’ষ্ট হচ্ছিলো। পাড়ার মে’য়েরা খা’রাপ হয়ে যেতে পারে। তাই ভালোভাবে নি’ষেধ করেছি। উঠে যেতে বলেছি।’

পুরু’ষদের সিগারেট খেতে নি’ষেধ করেন না কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‌‘ছেলে-মে’য়ের মধ্যে পার্থক্য আছে। ছেলেদের নি’ষেধ করা যায় না। কিন্তু মে’য়েরা প্রকাশ্যে সিগারেট খেলে খা’রাপ লাগে।’

না’রী-পুরু’ষের সমান অধিকারে বিশ্বাস করেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, কর্মক্ষেত্রে সমান অধিকার। কিন্তু অন্য ক্ষেত্রে না।

আপনার কী মনে হয়, আমি খা’রাপ কিছু করেছি? একজন সাংবাদিক হয়ে আমাকে এ প্রশ্ন করেন কিভাবে? প্রশ্ন করেই নামাজে যাবেন বলে ফোন কে’টে দেন বারেক। নামাজের পর অসংখ্যবার ফোন করলেও বারেক আর ফোন ধরেননি।

পু’লিশও এই ব্যক্তির খোঁজ করছেন বলে জানিয়েছে নগর পু’লিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক। তিনি বলেন, ঘ’টনার স’ঙ্গে কারা জ’ড়িত তা জানতে পু’লিশ খোঁজ নিচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here