ভাস্কর্যবি’রোধীদের প্রতি কড়া বার্তা দিয়েছেন স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি বলেছেন, যদি কেউ মনে করেন যে অনেক শ’ক্তিশালী হয়ে গেছেন, এটা তাঁদের ভু’ল ধারণা।

তাঁরা মি’থ্যা ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন। দেশে কোনো রকম অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না।

গতকাল রবিবার স’চিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমন প্রতিক্রিয়া জানান স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘গতকাল ফেসবুকে দেখেছি যে একটি ছোট ছেলে বলছে যে মুক্তিযু’দ্ধে যত শহীদ হয়েছে, তার চেয়ে বেশি র’ক্ত হেফাজতের ওরা দিয়েছে।

এই যে মি’থ্যাচার, এই যে বিভ্রান্তি অল্প ব’য়সের ছেলের মাথার মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে—এটা তারা জেনেশুনে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করছে। এই যে উসকানি দেওয়া হচ্ছে, ছোট ছোট ছেলে-মে’য়েদের মি’থ্যা ত’থ্য দিয়ে বের করে নিয়ে আসা হচ্ছে; এটা নিশ্চয়ই কারো কাম্য নয়। আমরা অবশ্যই এটা দেখব।’

স্ব’রা’ষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘একটি ভাস্কর্য প্রজ’ন্মের পর প্রজ’ন্ম সাক্ষী হয়ে থাকে। আর আমরা সেখানে তা ধ্বং’স করতে যাচ্ছি। এটা হলো মা’নসিকতার ব্যাপার।

ভাস্কর্য যারা ভাঙবে তারা নিশ্চয়ই না জেনে মূর্খতার পরিচয় দেবে।’ কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভা’ঙচুরের ঘ’টনায় চারজনকে আ’টক করা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

তাঁরা হলেন কুষ্টিয়া শহরের জুগিয়া পশ্চিমপাড়া ইবনে মাসুদ মাদরাসার ছাত্র আবু বকর ও সবুজ ইসলাম নাহিদ এবং ওই মাদরাসার শিক্ষক মো. আলামিন ও মো. ইউসুফ আলী।

মন্ত্রী বলেন, ‘অ’ভিযুক্তরা ইবনে মাসউদ মাদরাসা থেকে বেরিয়ে এসে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। তাদের (ভাস্কর্যবি’রোধীদের) বক্তব্য…ফেসবুকে আপনারা নিশ্চয়ই দেখেছেন।

একজনের নাম বারবার চলে আসছে। তারই বক্তৃতা কিংবা তারই নির্দেশে এ ঘ’টনাগুলো ঘটছে। আমরা অনুসন্ধানের পর তার সম্প’র্কে বিস্তারিত জানাব। ত’দন্ত চলছে, তাই তার নামটি বলছি না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here