গত ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে আংটিবদল হয় শবনম ফারিয়া ও হারুন অর রশীদ অপুর। এরপর ২০১৯ সালের ১ ফেব্রুয়ারি জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে বিয়ে বন্ধ’নে আবদ্ধ হন দুজন। সবশেষ চলতি বছরের ২৭ নভেম্বর বিয়ের ঠিক

৬৬৫ দিনের মাথায়বিচ্ছেদ হলো এই দম্পতির। এখন অপু-ফারিয়া সম্প’র্কে সাবেক। গত শনিবার ফেসবুকে এক যৌথ বিবৃতি দেন অপু-ফারিয়া।

এ ব্যাপারে নিজের ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দেন ফারিয়া। সেখানে ফারিয়া লেখেন, জীবনটা নদীর মতো। কখনো জোয়ার, কখনো ভাটা। কখনো বৃষ্টিতে পানি বেড়ে যায়, শীতকালে পানি শুকিয়ে যায়। আমাদের জীবনেও এমনটা হয়!

আমাদের জীবনে কিছু মানুষ আসে; কেউ কেউ স্থায়ী হয়, কেউ কেউ কিছু কারণে স্থায়িত্ব ধরে রাখতে পারে না।

এদিকে শবনম ফারিয়ার বিচ্ছেদের স’ঙ্গে স’ঙ্গে ফারিয়াকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন অনেকেই। অনেকেই বলছেন, ‌আমাকেই বিয়ে করো।

তোমার জন্য অপেক্ষা করছি। যদি দ্বিতীয় করতে চাও তবে আমিই তোমাকে বিয়ে করবো। এমন সব প্রস্তাব শবনম ফারিয়া পেয়েছেন সোশ্যাল হ্যান্ডেলের বিভিন্ন মাধ্যমে, মুঠোফোনে। বেশকিছু বিবাহের লিখিত প্রস্তাবের ছবি তুলে প্রকাশ করেছেন শবনম ফারিয়া।

এদিকে গত রবিবার (২৯ নভেম্বর) নতুন করে আরেকটি স্ট্যাটাস দেন ফারিয়া। সেখানে তিনি লেখেন, আমার বিচ্ছেদের

সংবাদ প্রকাশের পর থেকে মানুষ আমাকে দোষ দিচ্ছেন, গালি-গালাজ করছেন। আমি কেন স্ট্যাটাসে লিখেছি বিচ্ছেদ সুন্দর হবে। কেন বলছি আমরা বিচ্ছেদের পরও বন্ধু থাকবো।

উল্লেখ্য, এই স্ট্যাটাস দেয়ার পর থেকেই ফেসবুক থেকে উধাও হয়ে যান শবনম ফারিয়া। ফেসবুক থেকে সরে গেলেও বিবাহের প্রস্তাব থেকে রেহাই পাচ্ছেন না জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী ফারিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here