সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। মূলত সৌদিতে শুরু হতে যাওয়া জি-২০ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্য এই ফোনালাপ অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) তাদের মধ্যে এই ফোনালাপ হয় বলে জানিয়েছে ডেইলি সাবাহ।

শনিবার তুর্কি প্রেসিডেন্সি এক সংবাদ বিবৃতিতে জানিয়েছে, এরদোয়ান এবং সালমান সম্পর্কোন্নয়ন এবং বিভিন্ন বিষয় সমাধানে আলোচনার চ্যানেল উন্মুক্ত রাখার বিষয়ে একমত হয়েছেন। দুই নেতা জি-২০ সম্মেলন নিয়েও আলোচনা করেছেন।

এদিকে সৌদির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, জি-২০টির কাঠামোর মধ্যে সমন্বিত প্রচেষ্টা গ্রহণের বিষয়ে এরদোয়ানের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন বাদশাহ সালমান।

২০১৮ সালে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এছাড়া গত এক বছর ধরে তুর্কি পণ্য আমদানিতে সৌদি আরবে অঘোষিত বয়কট চলছে।

মা’সিক ৯০০ টাকা কি’স্তিতে ২০ বছর মেয়াদি বাড়ি নি’র্মাণে ঋ’ন দিবে বিএইচবিএফসি

আবাসন খাতে জমি বা ফ্ল্যাট কেনা ও বাড়ি নির্মাণ বা মেরামতে দীর্ঘমেয়াদী ঋ’ণ দিচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (বিএইচবিএফসি)। সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সরল সুদে এই ঋ’ণ নিয়ে পরিশোধ করা যাবে সর্বোচ্চ ২০ বছরে। প্রবাসীরা সর্বোচ্চ ২৫ বছর মেয়াদের জন্য এই ঋ’ণ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

এখানে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সরল সুদে মানে ঋ’ণ গ্রহিতাকে প্রতি লাখে মাসিক কিস্তি দিতে হবে সর্বনিম্ন মাত্র ৯০০ টাকা। বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের ওয়েবসাইটে

(http://www.bhbfc.gov.bd/) এমন লাখ আর জমির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা পর্যন্ত আমরা ঋ’ণ দিয়ে থাকি।বাংলাদেশি নাগরিকরা এটি সর্বোচ্চ ২০ বছরে এবং যারা প্রবাসে আছেন তারা সর্বোচ্চ ২৫ বছরে মাসিক কিস্তিতে এই ঋ’ণ পরিশোধ করতে পারবেন। আমাদের এখানে এ ধরনের বা’ধ্যবাধকতা নেই, আমরা শুধু অর্থ ঋ’ণ দিয়ে থাকি।

গ্রাহকের যেখানে সুবিধা মনে হবে তিনি এই অর্থ দিয়ে সেখানেই প্রপার্টি কিনতে পারবেন।প্রবাসীরা বাড়ি নির্মাণে ঋ’ণ সুবিধা পাওয়ার জন্য বিস্তারিত জানতে এই লিংকে আবাসন খাতে জমি বা ফ্ল্যাট কেনা ও বাড়ি নির্মাণ বা মেরামতে দীর্ঘমেয়াদী ঋ’ণ দিচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (বিএইচবিএফসি)।

সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সরল সুদে এই ঋ’ণ নিয়ে পরিশোধ করা যাবে সর্বোচ্চ ২০ বছরে। প্রবাসীরা সর্বোচ্চ ২৫ বছর মেয়াদের জন্য এই ঋ’ণ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

এখানে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সরল সুদে মানে ঋ’ণ গ্রহিতাকে প্রতি লাখে মাসিক কিস্তি দিতে হবে সর্বনিম্ন মাত্র ৯০০ টাকা। বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের ওয়েবসাইটে (http://www.bhbfc.gov.bd/) এমন লাখ আর জমির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা পর্যন্ত আমরা ঋ’ণ দিয়ে থাকি।

বাংলাদেশি নাগরিকরা এটি সর্বোচ্চ ২০ বছরে এবং যারা প্রবাসে আছেন তারা সর্বোচ্চ ২৫ বছরে মাসিক কিস্তিতে এই ঋ’ণ পরিশোধ করতে পারবেন।

আমাদের এখানে এ ধরনের বা’ধ্যবাধকতা নেই, আমরা শুধু অর্থ ঋ’ণ দিয়ে থাকি। গ্রাহকের যেখানে সুবিধা মনে হবে তিনি এই অর্থ দিয়ে সেখানেই প্রপার্টি কিনতে পারবেন।প্রবাসীরা বাড়ি নির্মাণে ঋ’ণ সুবিধা পাওয়ার জন্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here