চলন্ত বাসে হ’স্তমৈ’থুন করে এক কি’শোরীর গায়ে বী’র্যপাতের অভিযোগ উঠেছে বাসটির কন্ডাক্টরের বি’রুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার ভারতের পানাগড় থেকে বাসে ওঠার পর ওই কি’শোরীর স’ঙ্গে এমন আচরণ করেন কন্ডাক্টর।

কি’শোরীর বাড়ি বীরভূম জে’লার পুরন্দরপুরে। বাসটি আসানসোলের একটি সংস্থা লিজ নিয়ে চা’লায়। ঘ’টনার পরই জনার্দন দাস নামে অ’ভিযুক্ত ওই বাস কন্ডাক্টরকে কাজ থেকে বিরত রাখা হয়েছে।

ইন্ডিয়া টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার পানাগড় থেকে মায়ের স’ঙ্গে স’রকারি বাসে ওঠে ওই কি’শোরী। বাসে ভিড় থাকায় মা-মে’য়ের বসার জায়গা ছিল না।

তাই এই কন্ডাক্টর নিজের সিট ছেড়ে দেন। তার পরই ওই কন্ডাক্টর কিশোরীর স’ঙ্গে অশালীন আচরণ করতে শুরু করেন। এমনকি ভিড় বাসে হ’স্তমৈ’থুন করে তরুণীর গায়ে বী’র্যপাত করেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

পরে মা-মে’য়ে বাস থেকে নামার পর সিউড়ি ডিপোতে কন্ডাক্টরের বি’রুদ্ধে অভিযোগ জানান।

দক্ষিণবঙ্গ বাস পরিবহন নিগমের দুর্গাপুরের ডিভিশনাল ম্যানেজার দীপ্তিমান সিনহা জানান, সিউড়ি ডিপোতে ইতিমধ্যেই একটি অভিযোগ জমা পড়েছে। অভিযোগের সত্যতা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

অভিযোগ সত্য হলে ওই কন্ডাক্টরের বি’রুদ্ধে শা’স্তিমূ’লক পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি। বাসে যে সিসিটিভি আছে, তার ফুটেজও সংগ্রহ করে দেখা হচ্ছে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

তবে যে সংস্থা ওই বাসটি লিজ নিয়ে চালাচ্ছে, তারা অবশ্য অভিযোগ মানতে নারাজ। তাদের দাবি, কন্ডাক্টরের স’ঙ্গে তাদের কথা হয়েছে। তাদের তিনি জানিয়েছেন, ভাড়া ও বসা নিয়ে না’রীর স’ঙ্গে কথা কা’টাকাটি হয়। তার জন্য মিথ্যে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে অভিযোগ যেহেতু গু’রুতর, তাই ত’দন্ত শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here