আজ সকালে এই ঝড় ঝাঁপিয়ে পড়বে ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলীয় লুজন দ্বীপের ও’পর ।প্রতিবেদক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঘণ্টায় প্রায় ২১৫ কিলোমিটার গতিতে ধেয়ে আসা এই ঘূর্ণিঝড় গনির কারণে আজ ভূমিধস হতে পারে ধারণা করছেন দেশটির বিশেষজ্ঞ দল ।

ইতিমধ্যে প্রে’সিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের সহযোগী ক্রিস্টোফার গো বলেন, ‘কো’ভিড-১৯ নিয়ে আমরা কঠিন সময় পার করছি। এর ভে’তর আরও একটি দু’র্যোগ আসছে।

২০১৩ সালে হাইয়ানের সময় প্রায় ৬ হাজার ৩০০ জনের প্রা’ণহা’নি হয়েছিল । গত সপ্তাহে তে ঘূ’র্ণিঝড় মোলাভির আ’ঘাতে ফিলিপাইনে ২২ জনের মৃ’ত্যু হয় যাদের বেশিরভাগই ছিলেন রাজধানী ম্যানিলার দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশের বাসিন্দা।

সবচেয়ে শ’ক্তিশালী ঘূ’র্ণিঝড় গনির প্রভাবে উপকূলীয় ও ভূমিধসপ্রবণ অঞ্চল থেকে মানুষজনকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে, ইতিমধ্যে প্রায় ১০ লাখ মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে । দেশটির বিমানবন্দর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জিম , অফিস কাছারী , সব কিছু সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এই ঘুর্ণি ঝড় টির প্রভাবে প্রচুর ক্ষয়ক্ষ’তি ও ভূমি ধস , প্রা’ণ হানি হওয়ার সম্ভবনা আছে , ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর আজ সকালে ঘণ্টায় ২১৫ -২২৫ কিলোমিটার গতিতে উপকূলীয় এলাকা ‘বিকল’-এ আ’ঘাত হানতে পারে ঝড়টি। বর্তমানে লুজন দ্বীপেই রাজধানী ম্যানিলা অবস্থিত হওয়ায় এখন পর্যন্ত কোনো হ’তাহতের খবর পাওয়া যায় নি।

ঘূ’র্ণিঝড়টির প্রভাবে আগামী ১২ ঘণ্টায় দেশটির কয়েকটি প্রদেশে ভারি বৃষ্টি, আকস্মিক বন্যা ও ভূমিধসের আ’শঙ্কা করা হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে দেশটিতে ঘূ’র্ণিঝড় মোলাভির আ’ঘাতে অন্তত ২২ জনের মৃ’ত্যু হয়। ২০১৩ সালে টাইফুনের হাইয়ানের কবলে পড়ে ফিলিপিন্সে প্রায় ৭ হাজার মানুষ প্রা’ণ হা’রান।

ইতিমধ্যে কন্ট্রোলে রুমের মাধ্যমে নজরদারি চলছে , ও আবহাওয়া দপ্তর মিনিটে মিনিটে আপডেট দিচ্ছেন । তবে এই কঠিন পরিস্থিতিতে দেশের স’রকার সবাই কে ঐক্যবদ্ধ ভাবে ধৈ’র্য ধরে এর মো’কাবিলা করতে বলছেন ও সমস্ত রকম সাহায্য করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here