কুষ্টিয়ার খোকসায় দাদন ব্যবসায়ীদের নি’র্যা’তনে এক ভ্যানচালকের মৃত্যু হয়েছে বলে নি’হ’তের স্ত্রী অভি’যো’গ করছেন। তবে পুলিশ বলছে, ওই ভ্যানচালক বি’ষ পানে আ’ত্ম’হ’ত্যা করেছেন। আপাতত অ’পমৃ’ত্যুর মা’ম’লা হবে।

পরিবারের অভি’যো’গ, দাদন ব্যবসায়ী চ’ক্র পাওনা টাকা আদায়ের জন্য পাখি ভ্যানের চালক মনিরুল ইসলামকে (৪২) বৃহস্পতিবার শোমসপুর বাজারের একটি ঘরে আ’টকে রেখে শা’রীরি’ক নি’র্যা’তন করে। এরপর মনিরুল বাড়িতে ফিরে অ’সুস্থ হয়ে পড়েন। রাতে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

মনিরুল ইসলাম শোমসপুর ইউনিয়নের পদ্মবিলা গ্রামের কিতাব উদ্দিন শেখের ছেলে। তার মৃত্যুর পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে দাদন ব্যবসায়ীরা। এ ঘটনায় অভি’যু’ক্ত দাদন ব্যবসায়ী ও তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

মনিরুলের বাবা জানান, করোনাকালে সংসারের তাগিদে তার ছেলে শোমসপুর বাজারের দাদন চ’ক্রের নেতা আলিফ খানের কাছ থেকে ১৪ হাজার ৫০০ টাকা দাদন নেন। ছয় মাসে সেই টাকা সুদসহ ৭০ হাজারে এসে দাঁড়ায়। ইতিমধ্যে এই দাদন চ’ক্র ৪৫ হাজার টাকা দামের একটি গরু নিয়ে গেছে। এখন তিনি নিজের বাড়ির জমি বিক্রি করে দাদনের টাকা পরিশোধের চেষ্টা করছিলেন। আর এর মধ্যে দাদনচ’ক্র পাওনা আদায়ের জন্য তার ছেলের ওপর প্রচ’ণ্ড চা’প সৃষ্টি করে ও নি’র্যা’তন চালায়। দা’দন চ’ক্রই তার ছেলে মৃত্যুর জন্য দায়ী। অথচ পুলিশ তাদের কথা শুনছে না বলে অভি’যো’গ করেন তিনি।

মনিরুলের স্ত্রী আঞ্জুয়ারা খাতুনের অভি’যো’গ, বৃহস্পতিবার বিকেলে দাদন ব্যবসায়ীরা তার বাড়িতে এসে হু’মকি দিয়ে যায়। এরপর সন্ধ্যায় দাদন ব্যবসায়ী আলিফ খানের নেতৃত্বে স’ন্ত্রা’সীরা তার স্বামীকে শোমসপুর বাজারে আ’ট’কে রেখে মা’র’ধ’র করে। রাতে সে বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মা’ম’লা করতে শুক্রবার সকাল থেকে কয়েক দফা থানায় গিয়েছেন তিনি। কিন্তু তাকে প্রত্যেকবার ফেরত পাঠানো হয়েছে। স্বামী হ’ত্যা’র সঙ্গে জড়িত দাদন ব্যবসায়ীদের বিচার দাবি করেন তিনি।

ভ্যানচালক মনিরুল বি’ষ পানে আ’ত্ম’হ’ত্যা করেছেন মন্তব্য করে খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুমজ্জামান তালুকদার বলেন, এ বিষয়ে কেউ থানায় অভি’যো’গ করেনি। অভি’যো’গ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওসি জানান, লা’শটি উদ্ধার করে ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অ’প’মৃত্যুর মা’ম’লা হচ্ছে। পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here