১৮ অক্টোবর থেকে গোটা দেশের বাসাবাড়ি, অফিস ও ব্যাংক সহ ইন্টারনেট ডাটা কানেক্টিভিটি এবং ক্যাবল টিভি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যায়োসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এবং ক্যাবল অপারেটর অব বাংলাদেশ (কোয়াব)। তবে এবার সেই সি’দ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে প্রতিষ্ঠান দুটি। শনিবার (১৭ অক্টোবর) এক জুম মিটিংয়ে সভা শেষে এমন সি’দ্ধান্ত জানায় প্রতিষ্ঠানগুলো।

আইএসপিএবি ও কোয়াবের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, স’ঙ্কট সমাধানের লক্ষ্যে এই দুই সংগঠনের সাথে বৈঠক করবেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। এই বৈঠকের মাধ্যমেই রাজধানীর ঝু’লন্ত তার নিয়ে ফলপ্রসূ সি’দ্ধান্ত আসতে পারে বলে ধারনা করছেন সংগঠনের নেতারা।

আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম, মহাস’চিব ইম’দাদুল হক এবং কোয়াবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজের পক্ষ থেকে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ইন্টারনেট ও ডিস সংযোগ সেবা বন্ধ করার কথা বলা হয়েছিল সেটা বাতিল করার কারনে আপাতত বন্ধ হচ্ছে না সেবাগুলো।

প্রস’ঙ্গত, গত ৫ অক্টোবর থেকে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন শহরের ঝু’লন্ত তার অপসারণের জন্য অ’ভিযান শুরু করে। শহরের পরিবেশ রক্ষার্থে এই তার অপসারণ করা হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়। তবে এই তার অপসারণ করা হলে সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে কীভাবে তার ব্যবহার করা হবে সে ব্যাপারে কোন সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেয়নি সিটি কর্পোরেশন। ফলে ইন্টারনেট ও ডিস সংযোগ সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যাপক ক্ষ’তির সম্মুখীন হয়।

এরই প্রেক্ষিতে আগামীকাল (১৮ অক্টোবর) থেকে গোটা দেশে সেবা দুইটি বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। স’ঙ্কট সমাধানে আলোচনার দুয়ার খুলে যাওয়ায় এখন তাই ধর্মঘট থেকে সরে এসেছে সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান দুইটি।

ধারনা করা হচ্ছিল ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দেয়া হলে দেশের অর্থনৈতিক খাতে ব্যাপক ক্ষ’তি হতে পারে। ফলে বৃহত্তর স্বার্থে আলোচনার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে আইএসপিএবি ও কোয়াবকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here