সুশান্ত সিং রাজপুতের মত্যুর ২ দিন পর প্রয়াত অভিনেতার ব্যান্দ্রার চার্টার রোডের ফ্ল্যাটে ফের পৌঁছয় মুম্বাই পুলিসের একটি দল। সুশান্তের ব্যান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে পু’লিশ অভিনেতার ল্যাপটপ, কাগজপত্র, চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন জ’ব্দ করে। সুশান্ত সিং রাজপুতের মোবাইল ফোনটিও ত’দন্তের স্বার্থে জ’ব্দ করা হয়।

জানা গেছে, মঙ্গলবার পু’লিশ যখন সুশান্তের ব্যান্দ্রার ফ্ল্যাটে পৌঁছয়, সেই সময় সেখান উপস্থিত ছিলেন প্রয়াত অভিনেতার প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা লোখন্ডে। তবে তাঁকে কিছু জি’জ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে কি না, সে বি’ষয়ে কিছু জানা যায়নি।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, সুশান্ত সিং রাজপুতের মোবাইল ফোন জ’ব্দ করার পর সেটি খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে পু’লিশ। মোবাইল ফোনের লক খুলে, খতিয়ে দেখা হচ্ছে সমস্ত ত’থ্য। পাশাপাশি সুশান্ত যে অবসাদ কা’টানোর ও’ষুধ খাচ্ছিলেন, খতিয়ে দেখা হবে সেই তালিকাও।

সেই সঙ্গে সুশান্তের ফ্ল্যাট থেকে যে কাগজপত্র জ’ব্দ করা হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হবে, সত্যিই প্রয়াত অভিনেতার সঙ্গে কারও শ’ত্রুতা ছিল কিনা! সত্যিই তাঁর উপর কোনও চা’প ছিল কি না, তাও পু’লিশ খতিয়ে দেখবে বলে জানা যাচ্ছে।

এদিক কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপম দাবি করেন, ছিছোঁড়ের পর সুশান্তের হাতে প্রায় ৭টি ছবি ছিল। কিন্তু আচমকাই একের পর এক ছবি তাঁর হাত থেকে সরে যেতে শুরু করে।

৬ মাসের মধ্যে সুশান্তের হাত থেকে একের পর এক সিনেমা চলে যেতে শুরু করে। কেন একের পর এক সিনেমা সুশান্তের হাত ছাড়া হচ্ছিল, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন কংগ্রেস নেতা।

সত্যিই কি সুশান্ত সিং রাজপুতের কেরিয়ারের উপর কেউ বা কারা প্রভাব খাটাতে শুরু করেছিলেন, যার জন্য করুণ পরিণতি হলো অভিনেতার! সুশান্তের ল্যাপটপ, মোবাইল এবং কাগজপত্র খতিয়ে দেখে, সেই সব প্রশ্নের উত্তর মিলতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে পু’লিশের পক্ষ থেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here