দক্ষিণ কেনিয়ার কিটুই শহরে এক ব্যক্তি স্ত্রীর ‘প্রেম’ আ’টকাতে তার বিশেষাঙ্গে শ’ক্তিশালী আঠা ব্যবহার করেছেন। তারপরই তাকে গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। পু’লিশের কাছে তিনি গোটা ‘ঘ’টনা’ খুলে বলেন।

আঠা ব্যবহারের কথা স্বীকারও করে নিয়েছেন ওই ব্যক্তি। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ওই না’রীর স্বা’মীর নাম ডেনিস মুমো। পেশায় ব্যবসায়ী ডেনিসকে প্রায়ই দেশ বিদেশে যেতে হয়। ডেনিসের অ’ভিযোগ, তার অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়ে স্ত্রী অন্তত চার জন পুরু’ষের স’ঙ্গে সম্প’র্ক গড়ে তুলেছেন।

পু’লিশে গ্রে’প্তার হওয়ার পর ডেনিস জানিয়েছেন, তার কাছে স্ত্রীর প’রকীয়ার প্রমাণ রয়েছে। স্ত্রীর সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে এমন অনেক মেসেজ তিনি খুঁজে পেয়েছেন যাতে প্রমাণিত হয় অন্তত চার জন পুরু’ষের স’ঙ্গে তার স্ত্রীর শা’রীরিক সম্প’র্ক রয়েছে।

এমনকি একজনকে ন’গ্ন ছবিও পাঠিয়েছেন তিনি, স’ঙ্গে নাকি ইঙ্গিত দিয়েছেন পরের সপ্তাহে শা’রীরিক সম্প’র্ক হওয়ার। ডেনিসের দাবি, এই সব দেখে তিনি তার বৈবাহিক সম্প’র্ক বাঁচাতেই স্ত্রীর গো’পনা’ঙ্গে আঠা দিয়ে সিল করে দিয়েছিলেন। সম্প্রতি ব্যবসার কাজে বিদেশে যাওয়ার আগে তিনি স্ত্রীর স’ঙ্গে এই সব কাণ্ড করেছেন বলে অ’ভিযোগ।

এদিকে, বি’ষয়টি জানাজানি হতেই হইচই পড়ে যায়। অ’ভিযোগ যায় পু’লিশের কাছে। তারপরই গ্রে’প্তার করা হয় ডেনিসকে। তাকে ঘরোয়া নি’র্যাতনের অ’ভিযোগে আ’দালতেও তোলা হয়। তবে একই স’ঙ্গে ডেনিসের স্ত্রীর বি’রুদ্ধেও ব্যাভিচারের অ’ভিযোগ আনা হয়েছে। মা’মলা চলছে স্থানীয়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here