ধ”র্ষ”’ণ ও ধ”র্ষ’ণে স’হযোগিতার অ’ভিযোগে করা মা’মলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সং’সদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ ছয়জনকে গ্রে’ফতার না ক’রলে আ’ত্ম’হ”ত্যা’র হু’মকি দিয়েছেন সেই তরুণীর ।

বুধ’বার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম মা’হমুদা আক্তা’রের আ’দালতে নুর’দের গ্রে’ফ”তারের জন্য আ’বারও আ’বেদন করেন তিনি। আ’দালত আবেদনটি নথিভুক্ত করেছেন।

পরে আ’দালত থেকে বেড়িয়ে ওই ছা’ত্রী হু’মকি দেন, আ”সা’মি’রা গ্রে’ফ’তা’র না হ’লে তি’নি আ’ত্ম’হ’ত্যা করবেন।

ভি’কটিম বলেন, লালবাগ ও কোতয়ালী থা’নায় ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর দুটি মা’মলা দা’য়ের করি। স্বাভাবিকভাবে এ ধরনের মা’মলা দা’য়েরের পরপরই আ’সামিদের গ্রে’ফতার করা হয়। দুই মা’মলায় অ’ভিযু’ক্ত ব্যক্তিরা একই। দুই থা’নাই আ’সামিদের গ্রে’ফতার করতে পারছে না। এ বি’ষয়ে একাধিকবার থা’নায় যোগাযোগ করেছি। থা’না বলছে, আম’রা চেষ্টা করছি। আ’সামিরা এতটাই টেকনিক্যাল বি’ষয়ে এক্সপার্ট যে কোনোভাবে তাদের লোকেশন ট্র্যাক করতে পারছি না।’

তিনি বলেন, অনেকদিন হয়ে গেলো, আ’সামি গ্রে’ফতার হলো না। তারপর আমি আ’দালতের শরণাপন্ন হলাম।
ভি’কটিম আরও বলেন, আমি ন্যায়বিচার কতটুকু পাবো, সেটা এখন প্রশ্নবিদ্ধ। বাংলাদেশে একটা ট্রেন্ড চালু আছে, মৃ’ত্যুর পর সবারই টনক নড়ে। তারপর বিচারের দাবিতে উত্তাল হয়, ব্যানার, ফেস্টুন, মা’নববন্ধ’ন হয়।

আমি নিজে প্রকাশ্যে এসেছি, কথা বলেছি। তারপরও সাড়া পাইনি। কোনো আ’সামিকে গ্রে’ফতার করা হয়নি। অবস্থা যদি এরকম চলতে থাকে, তাহলে আমিও সেই পথটাই বেছে নেবো, যে পথ অনেকে বেছে নিয়েছে। আমি মনে করি, আমা’র এ সাহসিকতা, ন্যায়বিচার চাওয়ার অ’প’রাধে আমা’র দ’ণ্ড হওয়া উচিত। সে জায়গা থেকে আমা’র মৃ’ত্যুটাই ভালো। মৃ’ত্যুর পর যদি বিচার হয়, তাহলে তা-ই হোক। সেদিকেই হাঁটবো।

গত ৪ অক্টোবর ভিপি নুরসহ ৬ জনকে গ্রে’ফতারের জন্য আবেদন করেন মা’মলার বা’দী। আ’দালত সেদিনও আবেদনটি নথিভুক্ত করার আদেশ দেন।

২১ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই শিক্ষার্থী লালবাগ থা’নায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে প্রধান আ’সামি করে ছয়জনের বি’রুদ্ধে ধ’র্ষণের মা’মলা করেন।

এজাহারে ধ’র্ষ”ণে সহ’যোগিতাকারী হিসেবে নু’রু’ল হক নুরের নাম উল্লেখ করা হয়। নুর ও মামুন ছাড়া মা’মলার অন্য আ’সামিরা হলেন-বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ, যুগ্ম-আহ্বায়ক (২) মো. সাইফুল ইস’লাম, সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা এবং ঢাবি শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here