ক’রোনার সং’ক্র’মণ এড়াতে প্রয়োজনীয় স্বা’স্থ্যবিধি নিশ্চিত করে নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তুতি গ্রহণ করছে শিক্ষা ম’ন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডগুলো। সাপ্তাহিক ও স’রকারি ছুটি বাদে পরীক্ষা শুরুর পর থেকে প্রতিদিন পরীক্ষা চলবে। যত দ্রু’ত সম্ভব পরীক্ষা শেষ করতে চায় ম’ন্ত্রণালয়।

জানা গেছে, সব বি’ষয়েই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে, তবে পূর্ণ নম্বর কমতে পারে। আজ এ ব্যাপারে শিক্ষা ম’ন্ত্রণালয় থেকে স’রকারের উচ্চপর্যায়ের স’ঙ্গে আলোচনা করা হবে।

গত ১ এপ্রিল চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হওয়ার সি’দ্ধান্ত থাকলেও ক’রোনার কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়। এবার ১৪ লাখ পরীক্ষার্থীর জন্য প্রায় দুই হাজার ৫০০ কেন্দ্রে প্রস্তুত করেছিল ১১টি শিক্ষা বোর্ড। তবে ক’রোনার কারণে এখন প্রতি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থী বসিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে প্রায় পাঁচ হাজার কেন্দ্র প্রয়োজন হবে। সে প্রস্তুতিও গ্রহণ করেছে বোর্ডগুলো।

গত সপ্তাহে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানান, চার সপ্তাহের সময় দিয়ে এইচএসসি পরীক্ষার সূচি ঘোষণা করা হবে। পরীক্ষা নেয়ার পদ্ধতি, কতটুকু পরীক্ষা নেয়া হবে সে ব্যাপারে কর্মপরিকল্পনা চলতি সপ্তাহেই জানিয়ে দেওয়া হবে।

ম’ন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, শিক্ষামন্ত্রীর কথামতো নির্দিষ্ট সময়ে এইচএসসি ও সমামানের পরীক্ষা নেয়ার বি’ষয়ে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। আজ কিংবা বুধ-বৃহস্পতিবারের মধ্যে এ বি’ষয়ে সাংবাদিকদেরকে বিস্তারিত জানিয়ে দেওয়া হবে। পরীক্ষা শুরুর পর সাপ্তাহিক ও স’রকারি ছুটি বাদে প্রতিদিন পরীক্ষা হতে পারে। দ্রু’ত এই পরীক্ষা শেষ করতে চায় সংশ্লিষ্টরা।

এ ব্যাপারে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও আন্ত শিক্ষা বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এইচএসসি পরীক্ষার ব্যাপারে কথা বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী। এ বি’ষয়ে ম’ন্ত্রণালয় থেকে যে নির্দেশনা পাব, সে অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুত রয়েছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here