বঙ্গোপসাগরে লঘুচা’পের কারণে দেশের বিভিন্ন স্থানে আরো কয়েক দিন বৃষ্টি থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে এ ত’থ্য জানা গেছে। আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বলেন, গত কয়েক দিন ধরে চলা বৃষ্টি আরো কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে। এছাড়া দেশের অনেক স্থানে বৃষ্টিপাতের পরিমানও আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে, দফায় দফায় বন্যার কবলে পড়ে উত্তরাঞ্চলের মানুষের জীবন এখন দুর্বি’ষহ। আশ্বিনের এই সময়ে পঞ্চম দফা বন্যায় আ’ক্রান্ত হয়ে ১০ জে’লার মানুষ চ’রম দুর্ভোগে পড়েছে। বন্যায় প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। টানা বর্ষণ ও ভারতের ঢলে ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, পদ্মা, তিস্তা, ঘাঘট, করতোয়া, আত্রাই, ধলেশ্বরীসহ প্রধান নদ-নদীর পানি বৃ’দ্ধি পেয়ে উত্তরাঞ্চল আবার প্লাবিত হয়েছে।

এতে দিনাজপুর, রংপুর, ঠাকুরগাঁও, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, নিলফামারী, লালমনিরহাট, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ ও টাঙ্গাইলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

তলিয়ে গেছে কয়েক হাজার হেক্টর জমির রোপা আমনের ধান এবং আগাম সবজি ক্ষেত। ভেসে গেছে বহু পুকুর ও খামারের মাছ। বার বার বন্যায় প্লাবিত হয়ে এলাকার রাস্তা-ঘাট ভে’ঙে বেহাল দশা। অনেক রাস্তার ব্রিজ-কালভার্ট ভে’ঙে তলিয়ে গেছে বিস্তৃর্ণ এলাকা।

প্রবল স্রোত ও পানি বৃ’দ্ধির ফলে নদী ভাঙনে নিঃস্ব হয়েছে শত শত পরিবার। নদীগ’র্ভে বিলীন হয়েছে অনেক স্কুল, মাদরাসা, মসজিদসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

আরও পড়ুন= রায় শুনে যা বললেন মিন্নির বাবা

বরগুনার রিফাত শরীফ হ’ত্যা মা’মলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁ’সির আদেশ দেওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন মিন্নির বাবা মো. মোজাম্মেল হোসেন কি’শোর।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বেলা সোয়া দুইটার দিকে রায় ঘোষণা শেষ হওয়ার পর আ’দালত প্রাঙ্গণে গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন মোজাম্মেল হোসেন কি’শোর।

এ মা’মলায় ৬ জনের মৃ’ত্যুদ’ণ্ড ছাড়াও ৪ জনকে খালাস প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আ’দালত। রায় ঘোষণা করেন বরগুনার জে’লা ও দায়রা জজ আ’দালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান।

রায়ে অসন্তুষ্ট মিন্নির বাবা মো. মোজাম্মেল হোসেন কি’শোর বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলাম। কিন্তু মিন্নির প্রতি অবিচার করা হয়েছে। আমরা উচ্চ আ’দালতে যাব।

ফাঁ’সির দ’ণ্ডপ্রা’প্তরা হলেন- মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯) ও আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯)।

এছাড়া এ মা’মলায় চার আ’সামিকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়েছে। খালাসপ্রা’প্তরা হলেন- মো. মুসা (২২), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)।

২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা স’রকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফকে (২৫) কু’পিয়ে হ’ত্যা করা হয়। পরে রিফাতকে কু’পিয়ে হ’ত্যার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ঘ’টনার পরদিন ১২ জনের নাম উল্লেখ করে অ’জ্ঞাত আরও পাঁচ-ছয়জনের বি’রুদ্ধে মা’মলা করেন রিফাতের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here