নুরুল হক নুরের বি’রুদ্ধে ধ’র্ষণের সহযোগিতার অ’ভিযোগে মা’মলার ঘ’টনায় নি’ন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ৯০’র ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য নেতারা। বিবৃতিতে তারা স’রকারের তীব্র সমালোচনা করার পাশাপাশি নুরকে গ্রে’ফতারের ঘ’টনাকে ঘৃণ্য চ’ক্রান্ত হিসেবেও আখ্যা দেন।

৯০ দশকের ডাকসু নেতাদের এই সংগঠনটির সদস্যরা বিবৃতিতে বলেন, ‘’বি’রোধী দল ও মতকে দ’মন করার ঘৃণ্য চ’ক্রান্তের অংশ হিসেবে সাবেক ভিপি নুরকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে না’রী নি’র্যাতনের মি’থ্যা মা’মলায় জড়ানো হয়েছে।

স’রকারি বাহিনী তাকে গ্রে’ফতার ও জি’জ্ঞাসাবাদের নামে শা’রীরিক ও মা’নসিকভাবে নিপীড়ণের ঘৃণ্য পথ বেছে নিয়েছে। এ ঘ’টনার মধ্য দিয়ে ভোটারবিহীন অ’বৈধ স’রকার ডাকসুর মতো ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান ও সংগ্রামী ছাত্র নেতৃত্বের চরিত্র হননের জঘন্য খেলায় লি’প্ত হয়েছে।‘’

বিবৃত্তে নেতারা আরও জানান সাম্প্রতিক সময়ে নুর নানা রকম দেশবি’রোধী কর্মকাণ্ডের বি’রুদ্ধে সোচ্চার হওয়াতেই তাকে হে’নস্তা করছে স’রকার।

‘’ডাকসুর বিদায়ী ভিপি নুর সাম্প্রতিক সময়ে ক্ষ’মতাসীনদের দেশবি’রোধী নানা কর্মকাণ্ডের বি’রুদ্ধে সোচ্চার হয়েছিলেন বলেই স’রকার নাখোশ হয়ে তাকে হে’নস্তা করার নীতি গ্রহণ করেছে। যা গণবিচ্ছিন্ন স’রকারের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বকেই ন’গ্নভাবে উন্মোচিত করেছে।‘’

এছাড়া সংগঠনটির পক্ষ থেকে হুঁ’শিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে স’রকারের পক্ষ থেকে যদি আবারও এই ধরনের অপতৎপরতায় লি’প্ত হয় তাহলে দেশের ছাত্র সমাজ ঐক্যবদ্ধ হয়ে তা মোকাবেলা করবে।

নুরকে হে’নস্তা করার ঘ’টনায় বিবৃতিদাতা ৯০’র ডাকসু নেতারা হলেন, আমান উল্লাহ আমান, হাবিবুর রহমান হাবীব, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মি’লন, নাজিম উদ্দিন আলম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সাইফ উদ্দিন আহমেদ মনি, খোন্দকার লুৎফর রহমান ও আসাদুর রহমান খান আসাদ।

উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী নুরুল হক নুরের বি’রুদ্ধে ধ’র্ষণে সহযোগিতার একটি অ’ভিযোগ এনে এবং বাংলাদশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে প্রধান আ’সামি করে ছয় জনের বি’রুদ্ধে একটি ধ’র্ষণ মা’মলা দা’য়ের করেন। এরপর ২১ সেপ্টেম্বর রাতে নুরকে গ্রে’ফতার করা হলে কয়েক ঘণ্টা পর তাকে আবার ছেড়ে দেয় পু’লিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here