“প্রকৃতি নিয়ন্ত্রণ রেখা পার করলেই চলবে গু’লি, অতএব ভারতের সীমানা যেন পেরোনোর চেষ্টাও না করে চীনের পিপলস লিবারেশন আ’র্মি!”, শুক্রবার নয়াদিল্লির তরফ থেকে চীনের প্রতি চূড়ান্ত সতর্কবার্তা জারি করা হলো।

বিগত বেশ কয়েক মাস ধরেই ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ চা’লানোর চেষ্টা করছে চীনা সে’না। তবে বিগত এক মাস ধরে সী’মান্তে উভ’য়পক্ষের সে’নাবা’হিনী একে অপরের প্রতি ব’ন্দুক উঁচিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। উভ’য়পক্ষের সে’না আধিকারিকদের মধ্যে দফায় দফায় আলোচনার মাধ্যমেও কোনো সমাধান সূত্রে আসা সম্ভব হচ্ছে না।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় নিজেদের অবস্থান থেকে সরতে নারাজ চীনা ড্রাগনের দল। অতএব, সীমান্ত পরিস্থিতি বিবেচনা করে চীনের প্রতি এমনই সাবধান বাণী শোনালো ভারত।

শুক্রবার চীনকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হল, চিনা সে’নাবা’হিনীর কোনো সৈন্য যদি সীমান্ত পেরোনোর চেষ্টা করে, তবে আত্মরক্ষার স্বার্থে তাকে দেখামাত্রই গু’লি করতে পিছপা হবে না ভারতীয় সে’নাবা’হিনী। ভারতীয় প্রতিরক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর, চীনের প্রতি এখনো পর্যন্ত এটাই ভারতের সবথেকে বড় সতর্কবার্তা।

উল্লেখ্য, বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে ভারত-চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় সে’না সং’ঘাত অব্যাহত। গত জুন মাসে গালওয়ান উপত্যকায় ভারত চীন সীমান্ত সং’ঘর্ষের ফলে ভারতের কুড়ি জন জওয়ান শহীদ হন। এরপর থেকেই চীনের বি’রুদ্ধে রুখে দাঁড়ায় ভারত।

সীমান্ত সং’ঘর্ষ মেটাতে উভ’য় রাষ্ট্রের মধ্যে ইতিমধ্যেই ছয় দফা বৈঠক হয়ে গেছে। কিন্তু প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে নিজেদের সে’না সরাতে রাজি নয় চীন। উপরন্তু রাতের অন্ধকারে বহুবার ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা চালিয়েছে তারা।

তবে প্রত্যেকবারই ভারতীয় সে’নাবা’হিনী তৎপরতায় চীনের পরিকল্পনা ব্যাহত হয়েছে। এখন ভারতের সামনের নতুন শর্ত রাখছে চীন। চীনের দাবি অনুযায়ী, প্রথমে প্যাংগং লেকের দক্ষিণ চূড়া থেকে ভারতীয় সে’নাবা’হিনী পিছু হটুক, তবেই চীন পূর্ব লাদাখ থেকে তাদের সে’না সরাবে।

লাদাখ ইস্যু যাতে আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান করা সম্ভব হয়, সেজন্য তৎপর ভারত। লাদাখ উ’ত্তেজনা নিয়ন্ত্রণে আনতে শীঘ্রই উভ’য় রাষ্ট্রের মধ্যে সপ্তম দফা বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here