সামনে পূজা, আর পূজার আগেই ধীরে ধীরে কমছে স্বর্ণের মূ’ল্য। ২ দিনের ব্যবধানে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম কমেছে ৪৭ ডলার;

অর্থাৎ প্রতি ভরিতে কমেছে প্রায় সাড়ে ১৯ ডলার।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) সোনার সূচক কমেছে ০.১৫%। এদিকে আবার ২৪ ক্যারেটের ১০ গ্রাম সোনার দাম ৫৩ হাজার ৪৩০ টাকা।

এছাড়া ২২ ক্যারেটের ১০ গ্রামের সোনার দাম ৫০ হাজার ৭৩০ টাকা।

আন্তর্জাতিক বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, আজ মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে প্রতি আউন্স সোনা বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৯০২.২৭ ডলারে;

যা আগের দিনের তুলনায় ১০.৪৯ ডলার কম। গতকাল সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সোনার আন্তর্জাতিক বাজারে লেনদেন শেষ হয়েছিল ১৯১২.৭৬ ডলারে।

এদিন, বেশ বড় পতনের মুখে পড়েছিল সোনার দাম। একদিনেই প্রতি আউন্সে ৩৭.২৪ ডলার দাম কমেছিল সোনার দাম।

অর্থাৎ দেড় দিনেই ৪৭ ডলার কমেছে প্রতি আউন্স সোনার দাম। তবে, গত রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) কিছুটা উর্ধমুখী প্রবণতা ছিল সোনার বাজারে।

এদিন, বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনা বিক্রি হয় ১৯৫৩.১৬ ডলারে; আগের দিনে তুলনায় যা ৩ ডলার বেশি।

গত শনিবারও (১৯ সেপ্টেম্বর) উর্ধমুখী প্রবণতাতেই লেনদেন হয় সোনা। বিশ্ববাজারে ১৯৫০.৩৯ ডলারে বিক্রি হতে দেখা যায় প্রতি আউন্স সোনা। যা আগের দিনের তুলনায় সামান্য বেশি (০.৩৯ ডলার)।

আবারো এক ধাক্কায় সোনার দাম কমে এখন যত টাকায় দাঁড়িয়েছে

মধ্যবিত্তদের জন্য বড়সর সু’খবর। টানা তিনদিন…. বিপুল হারে কমল সোনার দাম। বুধবার প্রায় ৫০০০ টাকা কমল সোনার দাম।জানা গিয়েছে, ডলার মজবুত হওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে অনেকটাই দাম পড়ে গিয়েছে সোনার৷

দেশের বাজারে সোনার দাম ১০ গ্রামে ৬৭২ টাকা কমে গিয়েছে ৷ দিল্লির সরাফা বাজারে এক কিলোগ্রাম রুপোর দাম প্রায় ৫৭৮১ টাকা পড়ে গিয়েছে৷

বিশেষজ্ঞদের মতে, বিদেশি বাজারে সোনার দাম ৩ শতাংশের বেশি পড়ে গিয়েছে ৷ সোনার দাম প্রতি আউন্সে ১৯০০ ডলারের নিচে চলে এসেছে ৷ বিশেষজ্ঞদের মতে আগামী দিনে সোনার দাম আরও কমতে পারে৷

ম’’ঙ্গলবার দিল্লিতে ৯৯.৯ শতাংশ সু’’দ্ধতার সোনার দাম ৬৭২ টাকা কমে গিয়ে ৫১৩২৮ টাকা প্রতি ১০ গ্রামে হয়ে গিয়েছে ৷ সোমবার সোনার দাম ছিল ৫২০০০ টাকা প্রতি ১০ গ্রামে৷

এদিকে সোনার পাশাপাশি রুপোর দামও অনেকটাই কমে গিয়েছে ৷ ম’’ঙ্গলবার এক কিলোগ্রাম রুপোর দাম ৫৭৮১ টাকা কমে গিয়ে ৬১,৬০৬ টাকা প্রতি ১০ গ্রামে হয়েছে ৷ সোমবার অবশ্য রুপোর দাম ছিল ৬৭৩৮৭ টাকা৷

প্রস’’ঙ্গত, করো’’না আ’শঙ্কায় ডলারে সেফ ইনভেস্টমেন্ট শুরু করে দিয়েছে ৷ এর জেরে মা’র্কিন ডলার মজবুত হয়ে গিয়েছে ৷ এই পরিস্থিতিতে সোনার দাম আরও কমতে পারে৷

বিশেষজ্ঞদের আরও জানিয়েছেন, ইউরোপের অনেক অংশে নতুন করে করো’’নাভাই’রাস সংক্রা’’ন্ত বিধিনিষে’’ধের জেরে উর্ধ্বমুখী হয়েছে সোনা। প্রতিদ্ব’ন্দ্বীদের তুলনায় পড়েছে ডলারের সূচক।

অথচ সোমবার মা’র্কিন ডলার ছ’স’’প্ত াহে সর্বোচ্চ স্তরে পৌঁছে গিয়েছিল। রাজনৈতিক এবং আর্থিক অনিশ্চয়তার পরিস্থিতিতে সুরক্ষিত হিসেবে বিবেচিত হয় সোনা। চলতি বছরে সোনার দর ২৬ শতাংশ বেড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here