কাশ্মীর স’ঙ্কটকে ‘জ্বলন্ত স’মস্যা‘ অ্যাখা দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে এর সমাধানের বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন তুর্কি প্রে’সিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভার্চুয়ালি বক্তব্যে কাশ্মীর ইস্যু ‍তুলে ধরেন তিনি। জাতিসংঘের প্রস্তাব ও কাশ্মীরিদের প্রত্যাশা মেনে এই স’মস্যার সমাধান করা প্রয়োজন মনে করেন এরদোয়ান।

ভাষণে এরদোয়ান বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি এবং স্থিতিশীলতার জন্য কাশ্মীরে সং’ঘাত একটি জ্বলন্ত ইস্যু । জাতিসংঘের প্রস্তাব ও বিশেষ করে কাশ্মীরের মানুষের প্রত্যাশা মেনে স’মস্যার সমাধান করার পক্ষে আমরা।

তুর্কি প্রে’সিডেন্টের কাশ্মীর নিয়ে বক্তব্যে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া এক টুইট বার্তায় ক্ষো’ভ প্রকাশ করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি। বলেন, তুরস্ককে অন্য দেশের সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান জানানো শিখতে হবে। তুরস্কের নীতিতে এর প্রতিফলন থাকা দরকার বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে তুরস্কের প্রে’সিডেন্টের মন্তব্য নজরে এসেছে। ওই বক্তব্যে স্পষ্টভাবে ভারতের অভ্যন্তরীণ বি’ষয়ে হস্তক্ষেপ করা হয়েছে। দিল্লি কখনোই বিদেশি হস্তক্ষেপ বরদাশত করবে না।’

গত এক বছরে পাকিস্তানের মিত্র দেশ তুরস্ক আন্তর্জাতিক মঞ্চে বেশ কয়েকবার কাশ্মীর ইস্যু তুলেছে। তবে ভারত বারবার এটিকে নিজেদের অভ্যন্তরীণ বি’ষয় বলে দাবি করেছে। গত সপ্তাহে কাশ্মীর ইস্যুতে কথা বলায় তুরস্ক, পাকিস্তান এবং ওআইসি-র নি’ন্দা করেছিল ভারত।

কাশ্মীর ইস্যুতে মু’সলিম দেশগুলোর জোট ওআইসি’র পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের একটি বিশেষ বৈঠক আহ্বানের প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দিয়েছে সৌদি আরবও। এ নিয়ে চা’প প্রয়োগ করায় পাকিস্তানের স’ঙ্গে ৬২০ কোটি ডলারের ঋ’ণ ও তেল সরবরাহের চুক্তি বাতিল করে রিয়াদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here