ভারতীয় পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের বি’রুদ্ধে যৌন হে’নস্তার অ’ভিযোগে মুম্বাইয়ের ভারসোভা থানায় এফআইআর দা’য়ের করেছেন অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) পায়েলের আইনজীবী সংবাদমাধ্যমকে জানান, ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৬, ৩৫৪, ৩৪১ এবং ৩৪২ ধারা অনুযায়ী অনুরাগের বি’রুদ্ধে মা’মলা রুজু করা হয়েছে।

গত শনিবার বাঙালি অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ টুইটারে প্রধানমন্ত্রীকে ট্যাগ করে একটি পোস্ট করেন। পায়েল লেখেন, পাঁচ বছর আগে নিজের বাড়িতে তাকে যৌ’ন হে’নস্থা করেন অনুরাগ।

ওই অভিনেত্রী বলেন, কুপ্রস্তাব দেওয়ার পর পায়েল তা প্রত্যাখান করায় অনুরাগ ‘অশালীন’ শব্দ ব্যবহার করে বলেছিলেন, ‘একটা ফোন করলেই হুমা, রিচা এবং মাহি চলে আসবে।’

এরপরেই পায়েলের পাশে দাঁড়িয়ে অনুরাগকে ব্যক্তিগত আ’ক্রমণ করতে শুরু করেন কঙ্গনা। চুপ করে থাকেননি অনুরাগও। প্রধানত কঙ্গনার উদ্দেশে তিনি টুইটারে লেখেন, ‘দারুণ ব্যাপার যে আমাকে চুপ করানোর চেষ্টা করতে এত সময় লেগে গেল। সে না হয় ঠিক আছে। কিন্তু আমাকে চুপ করানোর জন্য এত মিথ্যে বলতে হচ্ছিল যে না’রী হয়ে অন্য এক না’রীকে সেই মিথ্যেয় শামিল করতে হলো।

ম্যাডাম, অন্তত একটু শালীনতা বজায় রাখু’ন। আমি শুধু এইটুকুই বলব যে, যা যা অ’ভিযোগ আনা হয়েছে, সব ভিত্তিহীন। আমাকে কালিমালি’প্ত করতে গিয়ে আমার কলাকুশলী, এমনকি বচ্চন পরিবারকে টেনে আনাটা মোটেই বুদ্ধির কাজ হয়নি!’

এ বি’ষয়ে একটি বিবৃতিও জারি করে অনুরাগ বলেন, #মিটু আন্দোলনের গুরুত্বকে লঘু করতেই এ ধরনের অ’ভিযোগ তোলা হচ্ছে। এটা খুবই দুঃ’খজনক একটা বি’ষয় যে #মিটু-র মতো একটা গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলনকে ব্যক্তিস্বার্থে ভোঁতা করে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। বি’ষয়টিকে ব্যক্তি আ’ক্রমণে নামিয়ে আনা হচ্ছে।

অনুরাগ আরও বলেন, এ ধরনের মনগড়া অ’ভিযোগের ফলে আন্দোলনের গুরুত্বটা যেমন লঘু হয়ে যাচ্ছে, তেমনই যারা সত্যিই যৌ’ন হে’নস্থার শি’কার হচ্ছেন তাদের আবেগ নিয়ে খেলা হচ্ছে।

পায়েল তার টুইটে যে তিন বলিউড অভিনেত্রী অনুরাগের ‘লালসার শি’কার’ হয়েছেন বলে দাবি করেছিলেন, সেই তিন অভিনেত্রী অর্থাৎ হুমা কুরেশি, রিচা চাড্ডা এবং মাহি গিল গোটা ঘ’টনায় অনুরাগেরই পক্ষ নিয়েছেন। তিনজনেই একই সুরে বলেছেন, অনুরাগের কাছ থেকে কোনও রকম খা’রাপ ব্যবহার তারা পাননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here