আ’লোচিত মডেল-অ’ভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা। অ’ভিনয় গুণে দর্শক হৃদয়ে শ’ক্ত জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। মাঝে ব্যক্তিগত কারণেও সমালোচনার মুখে পড়েতে হয়েছে তাকে।

নিন্দুকের কথায় কান না দিয়ে নিয়মিত মিডিয়ায় কাজ করে যাচ্ছেন এই অ’ভিনেত্রী।

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহবন্ধ’নে আবদ্ধ হলেও বেশি দিন টিকেনি তার সংসার। ব্যক্তিগত জীবন ও ক্যারিয়ার নিয়ে সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন প্রভা।

এ সময় জানতে চাওয়া হয় আবারো বিয়ে করবেন কিনা? জবাবে প্রভা বলেন, ‘বিয়ে নিয়ে এই মুহূর্তে কোনো পরিকল্পনা নেই। বিয়ে আমা’র কাছে ট্রমা হয়ে গেছে। আমা’র মনে হয়েছে, জীবনস’ঙ্গী পছন্দে ভু’ল করেছি। সঠিক ভেবে যাকে বিশ্বা’স করেছি, সে আমা’র স’ঙ্গে বিশ্বা’সঘা’তকতা করেছে।

আমা’র আশপাশের সবাই কিন্তু জানেন, স’ম্পর্কের ব্যাপারে আমি শতভাগ বিশ্বস্ত থাকি। আপাতত বিয়ে করছি না। এটা ঠিক, প্রে’মে পড়ে যাই, কিন্তু বিয়েতে ভ’য় পাই।’

প্রভা অ’ভিনীত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘পারফর্মা’র’ বেস’রকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভিতে প্রচার হবে। এটি পরিচালনা করেছেন তাসমিয়াহ্ আফরিন মৌ। জনপ্রিয় একজন অ’ভিনেত্রীকে নিয়ে চলচ্চিত্রটির গল্প গড়ে উঠেছে।

অ’ভিনয় জীবনে অসংখ্য চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন তিনি। একবার নি’ষিদ্ধ পল্লীতে শুটিং করতে যান এই অ’ভিনেত্রী। সেখানে মঞ্জুরী নামে এক প’তিতার স’ঙ্গে তার পরিচয় হয়। মঞ্জুরী ওই অ’ভিনেত্রীকে চ্যালেঞ্জ করেন—বাস্তবে সে তার (মঞ্জুরীর) চরিত্র করতে পারবে না। মঞ্জুরীর চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন অ’ভিনেত্রী। তারপর নানা ঘ’টনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যায় গল্প।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এ চলচ্চিত্রে অ’ভিনেত্রীর চরিত্রটি রূপায়ন করেছেন প্রভা। মঞ্জুরী চরিত্রে দেখা যাবে মৌটুসী বিশ্বা’সকে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন শাহাদাৎ হোসেন।

বিকাশের মাধ্যমে ব্যাংক ঋ’ণ পাওয়ার নিয়ম

ডিজিটাল ঋ’ণের যুগে প্রবেশ করল বাংলাদেশ। আর এই সফলতার পেছনে মূ’ল অবদান রাখছে সিটি ব্যাংক ও বিকাশ। বাংলাদেশের শীর্ষ মোবাইল ফোনে আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বিকাশের গ্রাহকরা জরুরি প্রয়োজনে মোবাইলের মাধ্যমে সিটি ব্যাংক থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ঋ’ণ নিতে পারবেন।

ঋ’ণের সুদের হার হবে ৯ শতাংশ। এই ঋ’ণ পেতে কোনো নথিপত্র জমা দেওয়ার প্রয়োজন হবে না। আবেদন করা যাবে বিকাশ অ্যাপে ক্লিক করে। বিকাশে লেনদেন প্রতিবেদন ও ব্যবহারের ধরন দেখে কৃত্রিম বুদ্ধিম’ত্তা (এআই) ঠিক করবে গ্রাহক ঋ’ণ পাওয়ার যোগ্য কিনা।

ঋ’ণ পাওয়ার যোগ্য হলে তাৎক্ষণিকভাবে সিটি ব্যাংক ওই গ্রাহককে ঋ’ণ দেবে এবং মুহূর্তেই ঋ’ণের টাকা চলে যাবে ওই ব্যক্তির বিকাশ একাউন্টে। প্রাথমিকভাবে পাইলট প্রকল্পের আওতায় বিকাশের কিছু নির্দিষ্ট গ্রাহক সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋ’ণ পাবেন। সফলভাবে প্রকল্প শেষে বাড়বে ঋ’ণের পরিমাণ ও আওতা।

সিটি ব্যাংক ও বিকাশ এক বি’জ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, প্রকল্প সফলভাবে শেষ হলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদনক্রমে এই সেবা আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মুক্ত করবে সিটি ব্যাংক। ঋ’ণ পাওয়ার উপযু’ক্ত বিকাশ গ্রাহকেরা এই সেবা পাবেন।

জানা গেছে, ঋ’ণ নেওয়ার পরের তিন মাসে সম-পরিমাণ তিন কিস্তিতে নির্ধারিত ঋ’ণের টাকা পরিশোধ করতে হবে। গ্রাহকের বিকাশ হিসাব থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঋ’ণ পরিশোধ হয়ে যাবে। নির্ধারিত পরিশোধ তারিখের আগে গ্রাহককে ক্ষুদে বার্তা এবং অ্যাপসের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত ত’থ্য পাঠানো হবে।

সিটি ব্যাংকের এই ডিজিটাল ঋ’ণ গ্রহণকারীরা নিয়মিত ঋ’ণ পরিশোধ করছেন কিনা, তা মূ’ল্যায়িত হবে। পরবর্তীতে যে কোনো ধরনের ঋ’ণ পাওয়ার ক্ষেত্রেই এই মূ’ল্যায়ন বিবেচিত হবে। কোনো গ্রাহক ঋ’ণ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে বিধিবিধান অনুসরণে সিটি ব্যাংক ঋ’ণ খেলাপির ত’থ্য বাংলাদেশ ব্যাংককে অবহিত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here