টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে চলছে অনুশীলন। এই সফরে একের পর এক শর্ত জুড়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিসিবির সভা শেষে সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গণমাধ্যমের কাছে ক্ষো’ভ প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, এত শর্ত মেনে শ্রীলঙ্কা সফর সম্ভব না। এই ঘ’টনার পর টুইট করে সি’দ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে লঙ্কান বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির শ্রীলঙ্কার যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নামাল রাজাপাক্ষে।

বাংলা এবং ইংরেজি দুই ভাষাতেই টুইট করেছেন লঙ্কান মন্ত্রী। তিনি লিখেছেন, ‘যেহেতু আমরা সবাই জানি যে #COVID19 ম’হামা’রীটি পৃথিবী জুড়ে এখনো রয়েছে, তাই প্রতিরোদের ব্যবস্থাগু’লি একটি উচ্চমানের প্রকিয়াদিন, তবে এই অঞ্চলের ক্রিকেট কে গুরুত্ব দিয়ে আমি #SLC বোর্ডের অফিসিয়ালকে #COVID টাস্কফোসের্র সাথে পরামর্শ করতে এবং @BCBtigers বি’ষয়ে পুনবিবেচনা করতে বলেছি।’

যার প্রমিত বাংলা করলে দাঁড়ায়, ‘আমরা সবাই জানি যে কো’ভিড-১৯ ম’হামা’রী এখনও বিশ্বজুড়ে প্রবলভাবে বিরাজমান, এই অবস্থায় প্রতিরোধমূ’লক ব্যবস্থাই সর্বোচ্চ প্রাধান্য পাচ্ছে। তবে এই অঞ্চলের ক্রিকে’টের স্বার্থে আমি এসএলসিকে বলেছি কো’ভিড টাস্ক ফোর্সের স’ঙ্গে আলোচনা করে বিসিবির ব্যাপারটি পুনর্বিবেচনা করতে।’

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ৩টি টেস্ট ম্যাচ খেলতে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। কোয়ারেন্টাইন নিয়ে বি’রোধের কারণেই টেস্ট সিরিজ নিয়ে এখনও আনুষ্ঠানিক সূচি প্রকাশ করেনি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড।

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের শর্ত হলো, বাংলাদেশ দলকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। বিসিবি বলছে, ১৪ দিন নয়, ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকবে টাইগার ক্রিকেটাররা। লঙ্কানদের আরেক শর্ত হলো, সফরে নেট বোলার নিয়ে যাওয়া যাবে না।

এসব নিয়ে আজ দুপুরে মিডিয়ার সামনে ক্ষো’ভ প্রকাশ করে বিসিবি প্রধান বলেন, ‘শ্রীলঙ্কা আমাদেরকে যে শর্ত দিয়েছে, সেটা মেনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ কেন, কোনো কিছুই খেলতে যাওয়া সম্ভব নয়। আমরা আমাদের অবস্থান পরিষ্কারভাবে তাদেরকে জানিয়ে দিয়েছি। এখন তারা যদি শর্ত রিভিউ করে, তাহলে আমরা পরবর্তী বিবেচনা করব। কিন্তু শর্ত পরিবর্তন না করা পর্যন্ত আমরা সফরে যাব না।’

এসএলসি শর্ত দিয়েছে যে, বাংলাদেশ দল সেখানে যাওয়ার পর কোয়ারেন্টাইনের সময়টাতে হোটেলের রুম থেকেও বের হতে পারবে না। এখানেই বিসিবি সভাপতির বড় আপত্তি। তিনি আরও বলেন, ‘তারা শর্ত দিয়েছে আমরা ঘর থেকেও বের হতে পারবো না।

এটা তো অতিরিক্ত। আমি আরও বেশ কিছু জায়গায় কথা বলেছি। সে সব জায়গায় তো এমন নেই। তাহলে তাদের মধ্যে এমন কোনো স’মস্যা রয়েছে, যেটা আমরা জানতে পারছি না! তাহলে সেটা কি?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here