ই দুই বিশেষজ্ঞ হলেন, ডিরেক্টোরেট জেনারেল অব হেলথ সার্ভিসের ডেপুটি ডিরেক্টর ড. অনিল কুমার এবং ডেপুটি অ্যাসিসট্যান্ট ডিরেক্টর রূপালী রায়।

ম’হামা’রির বিভিন্ন পরিস্থিতি নিয়ে গ’বেষ’ণা করে তারা বলছেন, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময় ভারত ক’রোনার হাত থেকে নিষ্কৃতি পাবে।

তারা জানান, যখন দেশে ক’রোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা এর থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা প্রায় সমান হবে, তখন থেকেই ভাই’রাসের সং’ক্র’মণের হার কমতে শুরু করবে।

আর সেই সময়টি হলো সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি নাগাদ। অঙ্কের হিসাবে ক’রোনার হাত থেকে নিষ্কৃতি পেতে হলে সুস্থতার সংখ্যা আরও বাড়াতে হবে।

মৃ’তের সংখ্যা আর সুস্থতার সংখ্যার মধ্যে থেকেও সংক্রমিতের সংখ্যা বের করে নিতে হবে। আর সেটি সম্ভব হবে একমাত্র সুস্থতার হার বাড়লে।

তবে কোনো হিসাব বা পর্যবেক্ষণ আর গণনা তখনই মিলবে, যখন এই দীর্ঘ সময় দেশে সব রকম সাবধানতা, সামাজিক দূরত্ব, যথাযথ চিকিৎসা পরিকাঠামো ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হবে।

না হলে এই তারিখ পরিবর্তিত হতে পারে বলে মনে করছেন ওই দুই জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ।

ভারতে এখন পর্যন্ত ক’রোনা ভাই’রাসে আ’ক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫৬ হাজার। দেশটিতে মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ১৩৫ জনে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here