বহু বছর ধরে অস্বীকার করে আসার পর প্রথমবারের মতো পাকিস্তান স’রকার স্বীকার করেছে দেশটির করাচি শহরে বসবাস করেছে আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিম। স’ন্ত্রাসবাদে সহায়তার অ’ভিযোগে ৮৮টি গোষ্ঠীর বি’রুদ্ধে পাকিস্তান স’রকারের আরোপিত আর্থিক নি’ষেধাজ্ঞার তালিকায় রয়েছে এই আন্ডারওয়ার্ল্ড ডনের নাম।

গতকাল শনিবার (২২ আগস্ট) পাকিস্তান স’রকার এই তালিকা প্রকাশ করেছে। ভারতের সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব ত’থ্য জানা গেছে। ১৯৯৩ সালে ভারতের মুম্বাই হা’মলার প্রধান অ’ভিযুক্ত আসামী ছিলেন দাউদ।

প্যারিসভিত্তিক ফিনান্সিয়াল অ্যা’কশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ) ২০১৮ সালের জুন মাসে পাকিস্তানকে ধূসর তালিকাভুক্ত করে স’ন্ত্রাসবাদে সহায়তাকারী গোষ্ঠীগুলোর বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ইসলামাবাদকে সময় বেঁ’ধে দেয়। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ওই সময় সীমা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ক’রোনাভা’ইরাসেের ম’হামা’রির কারণে পরে তার মেয়াদ বাড়ানো হয়।

ওই সময়সীমা অনুযায়ী গত ১৮ আগস্ট পাকিস্তান স’রকার দুটি নোটিশের মাধ্যমে জামাত উদ দাওয়া প্রধান হাফিজ সাইদ, জইশ-ই মোহাম্ম’দ প্রধান মাসুদ আজহার ও আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমসহ বেশ কয়েক জনের ও’পর আর্থিক নি’ষেধাজ্ঞা জারি করে। এই নি’ষেধাজ্ঞার মাধ্যমে এসব ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর সম্পত্তি ও ব্যাংক হিসাব জ’ব্দ করবে পাকিস্তান।

১৯৯৩-এর মুম্বাই বিস্ফোরণে দাউদ ইব্রাহিমকে প্রধান অ’ভিযুক্ত হিসেবে মনে করে ভারত। ২০০৩ সালে তাকে বৈশ্বিক স’ন্ত্রাসী ঘোষণা করে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র। মুম্বাইয়ের ডাংরিতে জ’ন্ম নেওয়া দাউদ দীর্ঘদিন থেকে করাচিতে বসবাস করছেন বলে দাবি করে আসছে ভারত। তবে পাকিস্তান তা অস্বীকার করে আসছে।

আরএএস/সাএ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here