রাজধানীতে শনিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত কখনও রিমঝিম, কখনও মুষলধারায় বৃষ্টি ঝরেছে। এতে বিভিন্ন এলাকার অলিগলি থেকে ব্যস্ততম সড়কগুলো পানিতে তলিয়ে যায়। এ অবস্থায় ভাঙাচোরা, খানাখন্দে ভরা সড়কে চলাচলে নাকাল হতে হয়েছে নগরবাসীকে।

গর্তে পড়ে রিকশা, ভ্যান, ঠেলাগাড়ি ও মোটরসাইকেল চালকদের দুর্ভোগ পোহাতে দেখা গেছে। আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আরও কয়েকদিন রাজধানীসহ সারা দেশে বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে।

সকালে মহানগরীর মোহাম্ম’দপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী সড়ক, চন্দ্রিমা উদ্যান থেকে মিরপুরমুখো সড়ক, বিজয় সরণি সড়ক এবং বনানী, মহাখালী, গুলশান, কুড়িল, নিউমার্কেট, গু’লিস্তান, মতিঝিল, পল্টন, কারওয়ান বাজার, মিরপুর, উত্তরা, পুরান ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার সড়কে পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। বিরতিহীন বৃষ্টিতে সড়কের জলজট মাড়িয়ে পথ চলতে সীমাহীন ভোগান্তির শি’কার হয়েছেন মানুষ।

বেস’রকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ইম’দাদুল হক বলেন, দুপুর ১২টায় অফিসে জরুরি একটি সভা ছিল। ওই সভায় যোগদান করতে সকাল সাড়ে ১০টায় রেইনকোট পরে মোটরবাইকে মোহাম্ম’দপুরের বাসা থেকে রওনা হই। অফিস কুড়িলে।

বনানী আবাসিক এলাকার ভে’তরের সড়কগুলো পানির নিচে তলিয়ে গিয়েছিল। মোটরবাইকের চাকা গর্তে পড়ে স্টার্ট বন্ধ হয়ে যায়। গুলশানে আরেকটি গর্তে পড়ে কোম’রে ব্য’থা পেয়েছি।

খিলগাঁও উত্তর শাহজাহানপুরের বাসিন্দা এমএ বাদল বলেন, শনিবার ভোর থেকে রাজধানীতে বিরতিহীনভাবে বৃষ্টি ঝরেছে। নিয়মিত মোটরবাইক নিয়ে বাইরে বের হলেও এদিন অনলাইনে গাড়ি কল করে অফিসে গেছি। মিরপুরের বাসিন্দা হক ফারুক আহমেদ বলেন, এ এলাকার অলিগলিসহ প্রধান সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি জমে। ভাঙাচোরা আর খানাখন্দে ভরা এসব সড়কে পথ চলতে খুবই ক’ষ্ট হয়েছে স্থানীয়দের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here