প্রত্যেক যুগলের সম্প’র্কই অনেক ওঠা পড়ার সাক্ষী, তাই না? প্রত্যেক ঝ’গড়ার পরে তৈরি হওয়া মা’নসিক স্থিরতা থেকে শুরু করে প্রত্যেক সম্প’র্কের চড়াই উতরাই আপনার এতসব প্রাপ্য নয়,

তবুও একটার পর একটা চলে আসে।

বেশিরভাগ সময়ই এর পিছনে মূ’ল কারণ থাকে সম্প’র্কে স্বচ্ছতা, যেটা যে কোন সম্প’র্কের ক্ষেত্রে খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটা বলতে যতটা সোজা করতে ঠিক ততটাই কঠিন। এটা স্বীকার করুন যে, মে’য়েরা সেইসব ছেলেদেরই পচ্ছন্দ করে যাদের জীবনটা বইয়ের খোলা পাতার মত, যার জীবনের কোন কিছু গো’পন নেই।

আপনারা এখানে এইরকম ১৫টি বি’ষয় পড়বেন যেগু’লি আপনাদের প্রে’মিকরা কখনো আপনাদের বলতে চায় না।

১. প্রাক্তন প্রে’মিকা

অতীত দিয়েই শুরু করা যাক, একজন ছেলে এটা নিশ্চিত করতে আপ্রা’ণ চেষ্টা করবে যে আপনি যেন তার প্রাক্তন প্রে’মিকার নাম না তোলেন বা যেন ভূলেও তার সাথে দেখা না হয়।

সে অতীতেও অনেক সম্প’র্কে ছিল এবং সে চেষ্টা করবে যে অতীত সম্প’র্কের ভু’লগুলো যেন আর না হয়। সে তার অতীতের প্রে’মিকার সব স্মৃ’তি দূরে সরিয়ে রাখতে চায় যাতে সেটা তার বর্তমান সম্প’র্ককে কোনভাবে প্রভাবিত না করতে পারে।

২. অ’সুস্থতা

আপনি নিশ্চয়ই ভাবেন যে আপনার প্রে’মিক যখন অ’সুস্থ হয়ে পড়ে তখন সেটা আপনাকে না জানিয়ে লুকিয়ে রাখে এটা তার বাড়াবাড়ি এবং বোকামি, আসলে সে আপনাকে এই সমস্যাগু’লি থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে চায় যখন আপনি এমনিতেই আপনার নিজের জীবনে অনেক প্রতিকূলতার মুখোমুখি ।

৩. মানিব্যাগ আর মোবাইল ফোন

যদি আপনি সেই সব মে’য়েদের মত হন যারা প্রে’মিকের অনুমতি ছাড়াই তার মানিব্যাগ বা মোবাইল ফোন ঘাঁটাঘাঁটি করেন, তাহলে সেটা এখু’নি বন্ধ করুন। সে হয়ত আপনাকে কিছু বলবে না তবে এটা তার খুব অপছন্দের যে কেউ তার মানিব্যাগ বা মোবাইল নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করুক।

৪. খা’রাপ অভ্যাস

তার কোন ব্যক্তিগত হাইজিনের ব্যাপার হোক বা ড্রাগ সম্প’র্কিত কোন অভ্যাস, এগুলোকে সে কোনদিনও প্রকাশ করতে চায় না। যদিও সে আপনার সাথে সিগারেট বা হুক্কা খেতে কোন দিন অস্বীকার করবে না তবুও কোন দিন প্রথম উদ্যাগটা নিতে চাইবে না।

৫. অন্য মে’য়েদের দিকে তাকানো।

এটা বলার দরকার হয় না, এটা মানুষের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি আর বেচারা ছেলেরা এই ব্যাপারে কিছু করতে পারে না। তাই এই প্রশ্ন করার কোন দরকার নেই যে, “তুমি কি ওই মে’য়েটার দিকে তাকাচ্ছিলে ?” কারণ সে আপনাকে কোন দিনই ‘হ্যাঁ’ বলবে না।

৬. বিছানার উ’ত্তেজক কল্পনা।

মে’য়েদের যৌ’ন খিদে ছেলেদের থেকে বেশি, তবুও এটা ভাবার কোন কারণ নেই যে তারা এইসব নিয়ে কিছু চিন্তা করে না। যদিও সে আপনাকে এসব ব্যাপারে কিছু জানাবে না যে সে আপনার সাথে বিছানাতে কি কি করতে চায়।

৭. ব্লু ফিল্ম

একটা প্রধান কারণ যে সে কেন চায় না যে আপনি তার ফোনে হাত দিন, তা হল ছেলেদের একটা অভ্যাস আছে যে নিজেদের ফোনে প’র্ণ সংগ্রহ করে রাখে। কিন্তু সে আপনার সামনে এটা জীবনে স্বীকার করবে না।

৮. অসন্তোষ

আপনি হয়ত এরকম অনেক কাজ করে ফে’লেন যা তাদেরকে প্রচণ্ড রাগিয়ে তোলে, তাও সে আপনার সামনে শান্ত থাকার আপ্রা’ণ চেষ্টা করে। তার মানে এই নয় যে আপনি পুরো ছাড় পেয়ে গেছেন, অনেক সময়ই এটা পরে অসন্তোষের চেহারা নিয়ে থাকে, তাই আশা করুন এরকম যেন দিন না আসে যেদিন আপনার ও’পর রাগটা মেটাবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here